রমজানের ভোগ্যপণ্য পরিবহন ও বন্দরের কন্টেইনার যট হ্রাস পাবে : চট্টগ্রাম চেম্বার “চট্টগ্রাম চেম্বারের সাথে সেতু মন্ত্রীর আশ্বাস”

হোসেন বাবলাঃ১৬মে(চট্টগ্রাম)

চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র সভাপতি মাহবুবুল আলম সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি এবং সচিবের সাথে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ওজন নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা নিয়ে টেলিফোনে যোগাযোগ করার প্রেক্ষিতে এতদ্বিষয়ে মন্ত্রী আসন্ন রমজান মাসে ওজন নিয়ন্ত্রণ শিথিল রাখবেন বলে আশ্বস্ত করেন। এর ফলে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে রমজানের ভোগ্যপণ্য পরিবহনে ইতিবাচক প্রভাব পড়ার পাশাপাশি ব্যয় ও বন্দরের কন্টেইনার যট হ্রাস পাবে এবং রপ্তানিমূখী শিল্পের পণ্য পরিবহনে গতিশীলতা আসবে।

আসন্ন পবিত্র রমজান উপলক্ষে নিত্যপ্রয়োজনীয় ভোগ্যপণ্যের মূল্য স্থিতিশীল, যানজট ও আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ, জেলা প্রশাসন, ব্যবসায়ী ও ভোক্তা প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষকে নিয়ে ১৬ মে সকালে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে স্বাগতঃ বক্তব্য প্রদানকালে চেম্বার প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম উপরোক্ত তথ্য প্রকাশ করেন। সভার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিএমপি’র ভারপ্রাপ্ত কমিশনার মাসুদ-উল হাসান। চেম্বার প্রেসিডেন্ট’র সভাপতিত্বে এতে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের এনডিসি সৈয়দ মুরাদ আলী, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, চেম্বার সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, পরিচালকবৃন্দ এম. এ. মোতালেব, ছৈয়দ ছগীর আহমদ ও অঞ্জন শেখর দাশ, সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, সিসিসি কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, বিএসটিআই’র উপ-পরিচালক শওকত ওসমান, চট্টগ্রাম জেলা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি সালেহ আহমেদ সুলেমান ও মহানগর সভাপতি সালামত আলী, টেরীবাজার ব্যবাসয়ী সমিতির সা;সম্পাদক আহমদ হোসেন, কাজীর দেউরী কাঁচা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আবদুর রাজ্জাক, আন্তঃজিলা মালামাল পরিবহন সংস্থা ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী জাফর আহমেদ, প্রাইম মুভার ওনার্স এসোসিয়েশন’র সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক , ফলমন্ডির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলমগীর, ক্যাব সম্পাদক ইকবাল বাহার সাবেরী, চেম্বার পরিচালকবৃন্দ এ. কে. এম. আক্তার হোসেন, কামাল মোস্তফা চৌধুরী, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর), মোঃ অহীদ সিরাজ চৌধুরী দোকান মালিক সমিতি ও উৎপাদক প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি সিএমপি’র ভারপ্রাপ্ত কমিশনার মাসুদ-উল হাসান বলেন-নগরবাসী যাতে শান্তি ও নির্বিগ্নে সিয়াম পালন করতে পারে এ লক্ষ্যে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সিএমপি সম্পূর্ণ প্রস্তুত।

ঈদ পূর্ববর্তী ২০ দিন ২৪ ঘন্টা এবং পরবর্তী ৭(সাত) দিন আবাসিক এলাকাসমূহে বিশেষ নিরাপত্তা দেয়া হবে। অন্যদিকে পুরো রমজান মাসব্যাপী মাদকবিরোধী অভিযান অব্যাহত রাখার পাশাপাশি মার্কেট/শপিংমল সংশ্লিষ্ট এলাকায় বখাটে ও ছিনতাই রোধে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের উদ্যোগের কথা জানান। তিনি নগরীর প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার মোড়সহ সামগ্রিক যানজট নিরসনে অবৈধ পার্কিং না করা এবং প্রয়োজনে বিকল্প পার্কিং ব্যবস্থার উপর গুরুত্বারোপ করেন। এ ছাড়া জটিলতা ও ভুলবোঝাবুঝি এড়ানোর লক্ষ্যে মার্কেটসমূহে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বা সংস্থা কর্তৃক আলাদা আলাদা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা না করে শুধুমাত্র জেলা প্রশাসন কর্তৃক সমন্বয়ের মাধ্যমে পরিচালনা এবং নগরীর স্থানসমূহে র্যাবের টহল জোরদার করার অনুরোধ জানান। তিনি সিএমপি কর্তৃক নির্ধারিত সময়ে বিভিন্ন স্পটে মালামাল লোডিং-আনলোডিং এবং মার্কেটসমূহে নারী নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগসহ নারীবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করতে আহবান জানান।

চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বক্তব্যের শুরুতেই রমজানের মাহাত্মকে আরো সার্থক করে তুলতে এ মাসে ভোগ্যপণ্যের কৃত্রিম সংকট তৈরী না করা, মুল্য সহনীয় ও সাধারণ জনগণের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখা এবং কোন রেস্তোঁরায় মেয়াদোত্তীর্ণ বা ভেজাল খাবার পরিবেশন না করতে উপস্থিত ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের প্রতি আহবান জানান।

এছাড়া জেলা প্রশাসন কর্তৃক মাসব্যাপী মোবাইল কোর্ট কার্যক্রমে চেম্বারের পক্ষ থেকে একটি গাড়ি সরবরাহের আশ্বাস প্রদান করেন। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার মোঃ তৌহিদুল ইসলাম বলেন- জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাজার কমিটির সাথে সমন্বয় সাধন করে নিয়মিত বাজার মনিটরিং করা হচ্ছে। তিনি প্রত্যেক মালিক সমিতির অভ্যন্তরীন মনিটরিং কমিটি গঠন করার উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি আড়তগুলোতে বিশেষ অভিযান চালিয়ে সাপ্লাই চেইন দেখার কথা উল্লেখ করেন।

Print Friendly, PDF & Email