এ দুটোকেই ভালোবাসি: মেসি

২০০৩ থেকে ২০১৮। গত ১৫ বছরে বার্সা আর মেসি যেন সমার্থক হয়ে উঠেছেন। মেসির ফ্যানরাও লাল-নীল জার্সিতে তাকে দেখতে অভ্যস্ত। স্প্যানিশ জায়ান্টাদের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেই মেসির এই প্রজন্মের ফুটবলের রাজপুত্র হয়ে ওঠা। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ‘ফুটবল ম্যাজিশিয়ন’ জানিয়ে দেন বার্সায় বিশ্বের ফুটবল ক্লাব। তাই তিনি বার্সা ছেড়ে কোথাও যাচ্ছেন না।

বার্সার হয়ে মাঠে নেমে লা-লিগায় সর্বকালের সেরা পাঁচ গোলদাতাদের একজন মেসি। লা-লিগায় এক মৌসুমে সবচেয়ে বেশি ৫০টি গোলের রেকর্ডও রয়েছে এই ১০ নম্বর জার্সিধারীর। আর্জেন্টিনা ও বার্সেলোনা দুটোকেই নিজের ভালোবাসা বলে জানিয়ে ফুটবলের রাজপুত্র বলেন, ‘আমি কোনও ভাবেই বার্সেলোনা ছাড়তে আগ্রহী নই। অন্য যে কোনও জায়গার থেকে এখানে ভালো আছি। কোন কিছু প্রমাণ করার জন্য আমার কোথাও যাওয়ার নেই।’

বার্সেলোনার ফুটবলের প্রতি মেসি কতটা দায়বদ্ধতা একটি ঘটনা থেকেই বোঝা যায়। এর আগে রিয়ালে তার প্রাক্তন সতীর্থ নেইমারের রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেওয়ার নিয়ে মেসি জানিয়েছেন শেষ পর্যন্ত নেইমার যদি রিয়ালে যোগ দেয়, তাহলে সেটা বার্সেলোনার জন্য মোটেও সুখকর হবে না। তবে নিশ্চিতভাবেই সেটা রিয়ালের ফুটবলকে আরও শক্ত করবে।’

তবে বার্সার হয়ে খেলার কথা বলেই থামেননি ফুটবলের রাজপুত্র। সঙ্গে এও জানিয়েছেন বার্সেলোনা তার প্রিয় শহর। এখানে তার ছেলের বন্ধুরাও রয়েছে। তাই তিনি শহর পালটাতে চান না। পাশাপাশি টিভি চ্যালেনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বার্সার ফুটবল জাদুকর জানান, ‘আমি ইতিহাসে সেরা হওয়ার দাবিদার হতে চাই না বরং প্রতিদিন একটু করে নিজের খেলায় উন্নতি করতে চাই।’

Print Friendly, PDF & Email