চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন: সাত দফা


জে.জাহেদ,ব্যুরো প্রধান চট্টগ্রাম:
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) পরিবহন ব্যবস্থা ও শাটল ট্রেনের বিভিন্ন সমস্যা নিরসন ও নিরাপদ যোগাযোগ ব্যবস্থা নিশ্চিতসহ ৭ দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।
বৃহস্পতিবার (০৯ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৭টায় চট্টগ্রাম নগরীর ষোলশহর রেলওয়ে স্টেশনে ‘সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ চট্টগ্রাম, বিশ্ববিদ্যালয়’ ব্যানারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
বুধবার (৮ আগস্ট) শাটল ট্রেনে কাটা পড়ে দুই পা হারান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সমাজতত্ত্ব বিভাগের ছাত্র রবিউল আলম।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, রবিউল ক্যাম্পাসে এসেছিল দুই পায়ে দাঁড়াতে, নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে। কিন্তু তার পাই কাটা পড়লো। ট্রেনে শুধু তার পা কাটা পড়েনি, পড়েছে একটি পরিবারের স্বপ্ন। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে রবিউলের পুর্ণবাসের দ্বায়িত্ব নিতে হবে। তার চাকরির ব্যবস্থা করতে হবে।
বক্তারা আরো বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন ব্যবস্থার সংকট নিয়ে আন্দোলন করে আসছি। কিন্তু প্রশাসন আমাদের দাবি কখনোই কানে নেয়নি। যদি তারা পরিবহন সংকটের বিষয়টি সমাধান করতো তবে, রবিউলের এমন অবস্থা হতো না।
এসময় বক্তারা প্রশাসনের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, প্রশাসন কি উদরপূর্তি করার জন্যই প্রতিবছর বিশাল অংকের বাজেট পাশ করে? হলের খাবারের নূন্যতম কোন মান নেই, রাস্তাঘাটের বেহাল দশা। এসবসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সমস্যা সমাধান করতে হবে।
ইতিহাস বিভাগের ১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মনজুরুল হাসানের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী শুভ মারমা, পালি বিভাগের কিরণ মারমা, শিক্ষা ও গবেষণা ইনিস্টিটিউট বিভাগের ইমতিয়াজ ইমতু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
সাত দফায় যেসব দাবি অন্তুর্ভুক্ত
১. শাটলের বগি বৃদ্ধি ও সংস্কার।
২. রেললাইন সংস্কার ও ডাবল লাইন চালু করা।
৩. বটতলি স্টেশন থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত প্রত্যেক স্টেশনে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা জোরদার করা ও জনবল নিয়োগ
করা।
৪.বহিরাগতদের শাটলে যাতায়াত নিয়ন্ত্রণ করা।
৫. রবিউলের পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসা এবং পরিবার কে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেয়া।
৬. রেলস্টেশন সমূহকে আধুনিকায়ন করা।
৭. এক নম্বর গেট থেকে জিরো পয়েন্ট পর্যন্ত বাস সার্ভিস চালু করা।

Print Friendly, PDF & Email