সাড়ে ৭ কোটি টাকা দিয়ে জেলমুক্ত হলেন ব্রাজিলের মার্সেলো

ইউরোপের বড় বড় লিগগুলোতে খেলতে এসে খেলোয়াড়দের আয়কর ফাঁকির বিষয়টি এখন পুরোপুরিই ওপেন সিক্রেট বিষয়। লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো থেকে নেইমার- কেউ বাদ যায়নি কর ফাঁকি মামলা থেকে। সেখানে ব্রাজিলের আরেক সুপার স্টার, রিয়াল মাদ্রিদের ফুল ব্যাক মার্সেলো কেন বাদ যাবেন?

কর ফাঁকির মামলায় ফেঁসেছেন তিনিও। স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদে খেলছেন দীর্ঘদিন ধরে। সেখানকারই আয়কর কর্তৃপক্ষের নজরে পড়েছেন ব্রাজিলিয়ান এই সুপারস্টার। আয়কর আদালতের রায় অনুসারে চার মাসের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন মার্সেলো। তবে এই কারাবাস তিনি এড়াতে পারবেন, যদি সাড়ে সাত লাখ ইউরো (৭৫৩৬২৪) (বাংলাদেশি টাকায় প্রায় সাড়ে সাত কোটি) জরিমানা দেন। মার্সেলো আর্থিক জরিমানা দিতেই রাজি হয়েছেন, কারাবাদ এড়ানোর জন্য।

স্প্যানিশ ট্যাক্স প্রসিকিউটরের সঙ্গে এই মর্মে তিনি রাজি হয়েছেন যে, জরিমানার অর্থ সাড়ে সাতলাখ ইউরো দিয়ে কারাবাস এড়াবেন। স্প্যানিশ আইনেই রয়েছে, ২ বছরের কম যদি কারাবাসের রায় দেয়া হয়, তাহলে জরিমানা দিয়ে সেই কারাবাস এড়ানো সম্ভব। অর্থ্যাৎ জেলে যেতে হবে না।

ট্যাক্স ফাঁকির মামলায় মার্সেলোনার নাম নতুন সংযোজন। একই অপরাধে বার্সা সুপারস্টার লিওনেল মেসির ২১ মাসের কারাদণ্ড দেন স্পেনের আদালত। তিনি আড়াই লাখ ইউরো দিয়ে কারাবাস থেকে মুক্তি পান। একই সঙ্গে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ১৯ মিলিয়ন (১ কোটি ৯০ লাখ) ইউরো দিয়ে ২ বছরের কারাদন্ড থেকে মুক্তি পান। হোসে মরিনহো, লুকা মদ্রিচ, হ্যাভিয়ের মাচেরানো এবং অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ারাও অর্থের বিনিময়ে কারাবাস থেকে মুক্তি নিয়েছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email