নারী সমাজের মর্যাদাকে অনন্য উচ্চতায় প্রতিষ্ঠা করেছেন শেখ হাসিনা : সুজন ৩৮ ও ৩৯নং ওয়ার্ডে বসবাসরত ইপিজেডে কর্মরত নারী শ্রমিক নেতৃবৃন্দ সুজনের সাথে বিভিন্ন বিষয়ে সৌজন্য স্বাক্ষাত

নিজস্ব প্রতিনিধি:৩নভেম্বর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারী সমাজের মর্যাদাকে বাংলাদেশে এক অনন্য উচ্চতায় প্রতিষ্ঠিত করেছেন বলে মত প্রকাশ করেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন। ২ নভেম্বর শুক্রবার সকালে উত্তর কাট্টলীস্থ তাঁর নিজ বাসভবনে ৩৮ ও ৩৯নং ওয়ার্ডে বসবাসরত ইপিজেডের বিভিন্ন কারখানায় কর্মরত নারী শ্রমিক এবং নেতৃবৃন্দ জনাব সুজনের সাথে বিভিন্ন বিষয়ে সৌজন্য স্বাক্ষাত করতে গেলে তিনি উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লাইজু বেগম, শিউলি বেগম, সোনিয়া আকতার, নাজনিন বেগম, মিনু আরা বেগম, মাহিনুর আক্তার, নওরিন বেগম, জোবাইদা আক্তার, মিরা চৌধুরী, বিউটি আক্তার, চিনু দাশ, সুবর্ণা দে, মোঃ সাদ্দাম হোসেন ও মিজানুর রহমান সজল প্রমূখ।

সুজন আরো বলেন, দেশের রপ্তানী বানিজ্যের অন্যতম বিশাল যোগানদাতা হচ্ছে এই ইপিজেড। এই ইপিজেডে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে আগত হাজার হাজার নারী কাজ করে। এরাই হচ্ছে দেশের অর্থনীতির প্রাণ। কিন্তু দুঃখের বিষয় এই যে, এই বিপুল নারী জনগোষ্টীর জন্য এখানে কোন মাতৃসদন হাসপাতাল নেই। যার ফলে প্রসব কালীন সময়ে ঐ এলাকা থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে গিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া তাদের জন্য অনেক দূরুহ হয়ে পড়ে। তাই ঐ এলাকায় বসবাসরত নারীদের জন্য একটি আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত মাতৃসদন হাসপাতাল স্থাপনের জন্য তিনি সরকারের নিকট জোর আবেদন জানান।

তাছাড়া এখানে কর্মরত নারীরা যেহেতু সারাদিন কর্মস্থলে অবস্থান করে সেহেতু তাদের সন্তানদের দেখাশুনার জন্য কোন ডে-কেয়ার সেন্টার নেই। যার ফলে চাকুরীতে অবস্থানকালীন সময়ে তাদের সন্তানদের জন্য তারা নানারকম উৎকন্ঠায় থাকে। এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণের জন্য তিনি অত্র এলাকায় একটি উন্নত ডে-কেয়ার সেন্টার স্থাপনের দাবী জানান। তিনি আরো বলেন, ঐ এলাকায় বসবাসরত নারীরা সারাদিন হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করে কিন্তু তাদের বাসস্থানের অভাব প্রকট। তাই ঐ এলাকায় কমপক্ষে বিশ হাজার ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন একটি ডরমিটরী স্থাপন করা জরুরী। এছাড়া প্রতিদিনই সিইপিজেড এলাকায় যানজটের কবলে পড়ে হাজার হাজার নারী পুরুষের বিশাল কর্মঘন্টা নষ্ট হচ্ছে।
এ অবস্থা থেকে দ্রুত উত্তরণের জন্য সরকারের উচ্চ মহলের উদ্যোগ গ্রহণ করার একান্ত জরুরী বলে তিনি মত প্রকাশ করেন। জনাব সুজন নারী উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিভিন্ন আর্ন্তজাতিক স্বীকৃতির কথা উল্লেখ করে বলেন, “গ্লোবাল জেন্ডার গ্যাপ রিপোর্ট ২০১৪ অনুযায়ী নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে বিশ্বের ১৪২টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ দশম। ২০১৫ সালে বাংলাদেশ মর্যাদাপূর্ণ উইমেন ইন পার্লামেন্টস্ গ্লোবাল ফোরাম অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীর ক্ষমতায়নে অবদান রাখার জন্য ইউএন উইমেন এর ‘প্ল্যানেট ৫০-৫০ চ্যাম্পিয়নশিপ অ্যাওয়ার্ড’ ও গ্লোবাল পার্টনার ফোরামের ‘এজেন্ট অব চেঞ্জ’ অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন।’’ তাই আগামী নির্বাচনে নারী সমাজের পথপ্রদর্শক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার জন্য উপস্থিত নারী শ্রমিক এবং নেতৃবৃন্দের নিকট জনাব সুজন আহবান জানান।

Print Friendly, PDF & Email