অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য ৪র্থ শিল্প বিপ্লব আইডিইবি’র ৪৮ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও গণপ্রকৌশল দিবসের আলোচনা সভায় বক্তারা

হোসেন বাবলা:৮নভেম্বর

অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য ৪র্থ শিল্প বিপ্লব প্রতিপাদ্যে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনীয়ার্স, বাংলাদেশ আইডিইবি’র ৪৮ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও গণ প্রকৌশল দিবসের আলোচনা সভা ৮ নভেম্বর বৃহস্পতিবার আমবাগানস্থ আইডিইবি প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়।

আইডিইবি চট্টগ্রাম জেলা শাখার সভাপতি মোহাম্মদ আবু তাহের এর সভাপতিত্ত্বে আলোচনা সভায় মুখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত আইডিইবি’র কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-সভাপতি ও চট্টগ্রাম ওয়াসার পরিচালনা পর্ষদ সদস্য জাফর আহমেদ সাদেক, বিশেষ অতিথি আইডিইবি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-সভাপতি মোখলেছুর রহমান, বাংলাদেশ রেলওয়ের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী এইচ কে নাথ, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী এন আর হোর । স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইডিইবি চট্টগ্রাম জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ জসীম উদ্দিন।

আলোচনা সভা শেষে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে বর্ণাঢ্য র‌্যালি আইডিইবি ভবন চত্তর হতে বের হয়ে টাইগারপাস, সিআরবি, ইস্পাহানী মোড় হয়ে পুনরায় আইডিইবি ভবন চত্তরে এসে শেষ হয়। চট্টগ্রামস্থ বিভিন্ন সার্ভিস এসোসিয়েশনের ডিপ্লোমা প্রকৌশলীগণ এবং বিভিন্ন পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থীবৃন্দ র‌্যালীতে অংশগ্রহণ করেন। আলোচনা সভায় জাফর আহমেদ সাদেক বলেন প্রযুক্তি বাদ দিয়ে দক্ষতা বৃদ্ধি করা যায় না। আবার দক্ষতা বাদ দিয়ে প্রযুক্তির উন্নতি হয়না।

তাই প্রযুক্তি ও দক্ষতার সমন্বয় ঘটলে দেশ সমৃদ্ধিশালী হবে এবং দেশ সমৃদ্ধশালী হলে দেশের মানুষ অর্থনৈতিক মুক্তি পাবে। সে প্রেক্ষাপটেই অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য ৪র্থ শিল্প বিপ্লব। ৪র্থ শিল্প বিপ্লব হচ্ছে ডিজিটাল অবকাঠামের উপর নির্মিত মানব সভ্যতার নতুন একটি যান্ত্রিক অনুভুতিপ্রবন সিস্টেম-এ পদার্পন, যা একগুচ্ছ ইমাজিং টেকনোলজির সমম্বিত ও নিখুত ক্রিয়াকলাপের ফল।

এটা জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এবং নিউরো-প্রযুক্তির নিত্য নতুন ক্ষমতার প্রকাশ আর প্রচলিত অবলুপ্তির ভীতি মিশ্রিত এক নবতর জগত। ৪র্থ শিল্প বিপ্লব শ্রমবাজার আর ভবিষ্যতের কাজকর্মের ধরণ, আয়ের অসমতা, ভূ-রাজনৈতিক নিরাপত্তা, সামাজিক ও নৈতিক মূল্যবোধের কাঠামোকে ভীষণভাবে প্রভাবিত করেছে এবং করবে।

বার্তা প্রেরক

Print Friendly, PDF & Email