Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

রোহিঙ্গা ইস্যুতে রাজনৈতিক সংলাপের বিকল্প নেই

 

 

রোহিঙ্গা ইস্যুতে রাজনৈতিক সংলাপের বিকল্প নেই। আর এ সংলাপে ৫৭ দেশের সমন্বয়ে গঠিত ওআইসি’র মাধ্যমেও ফলপ্রসূ হবে না। এটি করতে হবে বাংলাদেশকে।

নিউইয়র্কে কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে ‘মিয়ানমারের বর্বরতার জন্যে দায়ীদের চিহ্নিত এবং রোহিঙ্গা মুসলমানদের নিরাপত্তা’ শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ সম্মেলনের বিস্তারিত তথ্য অবহিত করতে ৯ ফেব্রুয়ারি নিউইয়র্কে প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করে ‘ওয়ার্ল্ড রোহিঙ্গা অর্গানাইজেশন’। ওই সম্মেলনে এ মতামত ব্যক্ত করা হয়।

সম্মেলনে অংশগ্রহণকারিদের মধ্যে ছিলেন ‘ফ্রি রোহিঙ্গা কোয়ালিশন’র সমন্বয়কারী এবং আরাকান রোহিঙ্গা ন্যাশনাল অর্গানাইজেশনের পরিচালক রাজিয়া সুলতানা, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে কর্মরত সংগঠনের নেত্রী ইয়াসমীন উল্লাহ, আরকান ইন্সটিটিউট ফর পিচ এ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের পরিচালক মোং মোং, যুক্তরাজ্যের বার্মিজ কোয়ালিশনের প্রেসিডেন্ট টং কিং, ক্যালিফোর্নিয়া থেকে আসা রোহিঙ্গা মুসলমান মো. নূর প্রমুখ।

এই প্রেস ব্রিফিংয়ের সমন্বয় করেন নিউইয়র্ক ওয়ার্ল্ড রোহিঙ্গা অর্গানাইজেশনের প্রেসিডেন্ট মহিউদ্দিন মোহাম্মদ ইউসুফ। এ সময় তার সাথে আরও ছিলেন এই সংস্থার কর্মকর্তা লুৎফর রহমান লাতু, মশিউর রহমান প্রমুখ।

৮ ও ৯ ফেব্রুয়ারি এই সেমিনার হয় নিউইয়র্কে বিশ্বখ্যাত কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে। এতে ৩ ডজনের মত বক্তা ছিলেন, যারা মিয়ানমার পরিস্থিতি নিয়ে বিভিন্ন ফোরামে কাজ করছেন। সকলেই একযোগে প্রায় অভিন্নভাবে সুপারিশ জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক মহলের কাছে, অবিলম্বে উদ্ভূত পরিস্থিতির শান্তিপূর্ণ সমাধানের জন্যে। একইসাথে রোহিঙ্গা মুসলমান নিধনে জড়িত মিয়ানমারের সামরিক জান্তাসহ সিভিল প্রশাসনকেও আন্তর্জাতিক আদালতে সোপর্দ করার প্রয়োজনীয়তা ব্যক্ত করা হয়েছে। এই সভ্য সমাজে এমন বর্বরতায় লিপ্তরা রেহাই পেয়ে গেলে ভবিষ্যতে অন্য দেশেও এমন বর্বরতার পুনরাবৃত্তি ঘটবে বলে প্যানেলিস্টরা মতামত ব্যক্ত করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email