Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

দ্বীনি ও আধুনিক শিক্ষার মধ্যকার বিভাজনেরঅবসান হওয়া উচিৎ —-মাওলানা নূরী

বায়তুশ শরফ মজলিসুল ওলামা বাংলাদেশের মহাসচিব আল্লামা মামুনুর রশীদ নূরী বলেছেন, সন্তানেরা হচ্ছে জীবনের কিশলয়, উম্মাহর প্রস্ফুটিতব্য ফুল এবং আগামী দিনের ভবিষ্যত। তারা একদিন নিজেদের জীবন থেকে শুরু করে সমাজ ও রাষ্ট্রে নেতৃত্ব দিবে। তাই তাদের আলোর পথ দেখাতে হলে পিতা-মাতাকে দ্বীনি বুনিয়াদী শিক্ষা দানে উদ্যোগ নিতে হবে। কারণ জ্ঞান এমন একটি সার্বজনীন অধিকার যা প্রত্যেক মানুষকে অন্তভ’ক্ত করে। তিনি বলেন, ইসলামের প্রাথমিক শিক্ষা ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমিন ব্যক্তির মনস্তাত্বিক গঠন ও দ্বীনের প্রাথমিক শিক্ষার প্রভাব অনস্বীকার্য।
মাওলানা নূরী গতকাল বাঁশখালী উপজেলার দক্ষিণ জলদি হাফেজিয়া দরসুল কোরআন মাদরাসা বার্ষিক মাহফিলে প্রধান মুফাস্সিরের তাফসীরকালে একথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, কোরআন হাদিস তথা দ্বীনি শিক্ষার মাধ্যমে সন্তানেরা আল্লাহ বিমুখতা ও অশ্লীলতা থেকে মুক্ত হয়ে আদব শিষ্টাচার ও মার্জিক চরিত্রে গড়ে উঠবে। কিন্তু দু:খের বিষয় হচ্ছে আজ মুসলিম পিতা মাতারা আধুনিকতার জোয়ারে সন্তানদের দ্বীনি শিক্ষা দানের ব্যাপারে চরমভাবে উদাসীন হয়ে পড়েছে। মাওলানা নূরী আরো বলেন যুগ যুগ ধরে আমাদের দেশে দ্বীনি ও আধনিক শিক্ষার মধ্যেকার বিভাজন থাকার কারণে ইসলাম বিদ্বেষী তথা কথিত প্রগতিবাদীরা মাদারাসা শিক্ষার বিরেদ্ধে বিষোদাগার করতে সুযোগ পাচ্ছে অতচ ইসলাম হচ্ছে চির আধুনিক আল কোরআন হচ্ছে সকল জ্ঞান বিজ্ঞানের বিশ্বকোষ এবং ইসলামেই রয়েছে আধুনিক প্রযুক্তির যুগে সকল সমস্যার একমাত্র সমাধান। প্রধান বক্তা আরো বলেন, ক্ষনস্থায়ী দুনিয়ার জীবনের জন্য জ্ঞান অর্জন যেমন প্রয়োজন তার চাইতেও বেশী প্রয়োজন পরকালীন জীবনের জন্য জ্ঞান অর্জন ও যথাযথ আমল।
গতকাল বিকাল ৩টা থেকে চাম্বল মাদরাসার মুহতামিম পীরে কামেল আল্লামা আবদুল জলিলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন মোস্তফা আলী কোম্পানী, বিশেষ অতিথি ছিলেন মো: মহিউদ্দিন, আবদুল্লাহ, মনির আহমদ, হানিফ মাষ্টার প্রমুখ। আরো বক্তব্য রাখেন মাওলানা মুহাম্মদ ইসমাঈল, মাওলানা আমিনুল্লাহ, পরিচালক হাফেজ জাফর আহমদ সাদেক্বী আলী আহমদ মেম্বার, সাদ্দাম হোসাইন, কবির আহমদ, ক্বারী মাওলানা আবদুল গফুর প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email