Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

পেসারদের নিয়ে বিপাকে ফিঞ্চ

বিশ্বকাপের জন্য নিজেদের মতো করে প্রস্তুতি সেরেছে অস্ট্রেলিয়া। নিউজিল্যান্ড একাদশকে ডেকে এনে তিনটি ওয়ানডে খেলে নিয়েছে তারা। যে দলে নিউজিল্যান্ডের বিশ্বকাপ দলের পাঁচজন ক্রিকেটারও ছিলেন। সেখানেই অস্ট্রেলিয়ার নতুন পরিকল্পনা হাতে কলমে ব্যবহার করে দেখেছেন ফিঞ্চ।

নতুন বলে স্টার্কের সঙ্গে জ্যাসন বেহরেনডর্ফকে ব্যবহার করেছে অস্ট্রেলিয়া। ফিঞ্চের কাজটা কঠিন করে দিয়েছে ঝাই রিচার্ডসনের চোট। স্টার্ক -কামিন্সের মতো না হলেও ১৪০ কিলোমিটারের ওপর বল করতে পারেন ঝাই। কিন্তু বিশ্বকাপে তাকে না পাওয়ায় নতুন বলের দায়িত্ব বেহরেনডর্ফ, নাথান কোল্টার-নাইল ও কেন রিচার্ডসনের যেকোনো একজনকে দেওয়া হবে।

নিউজিল্যান্ড একাদশের বিপক্ষে অবশ্য পরীক্ষায় পাশ করতে পারেননি এই তিন পেসার। স্টার্ক ও কামিন্স যেখানে ১১৭ রানে ১০ উইকেট পেয়েছেন, সেখানে এই তিন পেসার মিলে ২২৩ রানে পেয়েছেন মাত্র ৬ উইকেট। এ কারণেই নতুন বল কার হাতে তুলে দেওয়া হবে সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পারছেন না কামিন্স, ‘আগামী কয়েক সপ্তাহেই এটা বোঝা যাবে। এখনো আমরা এ নিয়ে বসিনি, পরিকল্পনাও করিনি। এখনো অনেক প্রশ্নের উত্তর খোঁজা বাকি তবে আমরা বেশ ভালো অবস্থায় আছি সেটা করার জন্য।’

ফিঞ্চ একটি ব্যাপারে স্বস্তি পাচ্ছেন। মাঝের ওভারগুলোতে অন্তত স্পিন আক্রমণ নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। উইকেট তুলে নেওয়ার ক্ষমতার জন্য এবার প্রতিটি দলই লেগ স্পিনারে ভরসা রেখেছে। বাংলাদেশ দল ছাড়া প্রতিটি দলেই আছে অন্তত একজন প্রতিষ্ঠিত লেগ স্পিনার। অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডাম জাম্পা তো গত কিছুদিন ধরে আছেন দুর্দান্ত ফর্মে। ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে পারফরম্যান্স লাথান লায়নের চেয়ে এগিয়ে দিয়েছে তাকে, ‘ভারত ও আরব আমিরাতে জাম্পার পারফরম্যান্স অসাধারণ ছিল। সেখানে যে উইকেট ছিল, সেখানে বল খুব একটা স্পিন করছিল না। এমন ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে ভালো করছে যারা স্পিন খেলায় বিশ্ব সেরা।

Print Friendly, PDF & Email