Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

২১তম শুভ উপসম্পদা দিবস উদযাপন, নবনির্মিত ধর্মশালার শুভ দ্বারোদঘাটন ও নির্বাণশয্যা বুদ্ধমূর্তির জীবন্যাস এবং একক সদ্ধর্মদেশনা অনুষ্ঠিত

একবিংশ শতাব্দীর বিশ্বশান্তির মূর্ত প্রতীক, বুদ্ধ শাসনের আলোকবর্তিকা, ক্ষণজন্মা আধ্যাত্মিক মহাপুরুষ, ধুতাঙ্গ ধারায় প্রাণিত পুদগল, ত্রিলোক পূজ্য আর্য্যশ্রাবক, প্রতিসম্ভিদাসহ ষড়াভিজ্ঞা অর্হৎ ‘অনুবুদ্ধ’ পরম কল্যাণমিত্র ভদন্ত শীলানন্দ স্থবির (ধুতাঙ্গ ভান্তে) মহোদয়ের ২১তম শুভ উপসম্পদা দিবস উদযাপন, নবনির্মিত ধর্মশালার শুভ দ্বারোদঘাটন ও নির্বাণশয্যা বুদ্ধমূর্তির জীবন্যাস এবং একক সদ্ধর্মদেশনা অনুষ্ঠান হাইদচকিয়া গৌতমাশ্রম বিহার প্রাঙ্গণ ও হাইদচকিয়া শান্তিধাম বিহার প্রাঙ্গণে আজ ২৬ জুন বুধবার অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন হাইদচকিয়া গৌতমাশ্রম বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত এস এম সংঘরতœ মহাস্থবির। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী, ৬নং পাইন্দং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম ছরোয়ার হোসেন স্বপন, উদযাপন পরিষদের সভাপতি প্রকৌশলী মৃণাঙ্গ প্রসাদ বড়–য়া, সমন্বয়ক ৬নং পাইন্দং ইউপি মেম্বার গৌতম সেবক বড়–য়া, যুগ্ম সচিব অঞ্জন কুমার বড়–য়া, সূর্যগিরি আশ্রমের পরিচালক লায়ন ডাঃ বরুণ কুমার আচার্য বলাই। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন প্রবণ বড়–য়া পঙ্কজ, একক সদ্ধর্মদেশক ছিলেন ভদন্ত শীলানন্দ স্থবির (ধুতাঙ্গ ভান্তে)। অনুষ্ঠানসূচির মধ্যে ছিল বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, বিশ্বশান্তি কামনায় বৌদ্ধ ধর্মীয় পতাকা উত্তোলন, নবনির্মিত ধর্মশালার শুভ দ্বারোদঘাটন ও নির্বাণশয্যা বুদ্ধিমূর্তির জীবন্যাস, শুভ উদসম্পদা দিবসের কেক কাটা, শিষ্যসংঘের পিণ্ডচারণ, মঙ্গলাচরণ, সংগীত পরিবেশন, পঞ্চশীল প্রার্থনা ও গ্রহণ, ধুতাঙ্গ ভান্তের আয়ু সংস্কার প্রার্থনা, ধুতাঙ্গ ভান্তের সদ্ধর্মদেশনা প্রার্থনা, ধুতাঙ্গ ভান্তের সদ্ধর্মদেশনা প্রদান, অষ্টপরিষ্কারসহ সংঘদান ও অন্যান্য দানীয় সামগ্রী উৎসর্গ, সভাপতির দেশনা। ভদন্ত শীলানন্দ স্থবির (ধুতাঙ্গ ভন্তে) তাঁর বক্তব্যে বলেন, পরমপূজ্য আর্য শ্রাবক প্রতিসংবিদাসহ মানবতার শ্রেষ্ঠধর্ম, মানুষ যদি একে অপরের ক্ষমাশীল এবং মৈত্রী পরায়ন হয়ে থাকে এবং একে অপরের ভূলত্র“টি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখতে পারেন সেহল ইহলোক পরলোক উভয়লোক সুখ শান্তি লাভ করতে পারে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রায় ৩০০ সংগঠন ভান্তেকে ফুলেল শুভেচ্ছা, মানপত্র, ক্রেস্ট সম্মাননা প্রদান করেন। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রায় ৫০০০ অধিক প্রত্যন্ন অঞ্চল থেকে আগত ভক্ত নর-নারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email