Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

আল্লাহ আর আইরিশ সৌভাগ্য সঙ্গে ছিল: মরগ্যান

ইয়ান মরগ্যানের নেতৃত্বেই ওয়ানডে ক্রিকেটে বদলে যাওয়া শুরু করে ইংল্যান্ড। দলটির এগিয়ে চলা, চমক জাগানিয়া শক্তি হিসেবে গড়ে ওঠা, সবই তার ছায়ায়। বাকি ছিল বিশ্ব আসরে শ্রেষ্ঠত্ব দেখানো। তার নেতৃত্বে সেটিও করে দেখাল ইংল্যান্ড। ইংলিশ অধিনায়ক তাই ভাসছেন সব পেয়ে যাওয়ার আনন্দে।

ক্রিকেটের জন্মভূমি, ওয়ানডে ক্রিকেটের জন্ম দেওয়া দেশটি প্রথম ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতল এমন একজনের নেতৃত্বে, যার জন্ম-বেড়ে ওঠা এই দেশেই নয়! আইরিশ মর্গ্যানের জন্ম ডাবলিনে। সেই শহরেই একটি ক্লাবের হয়ে ক্রিকেট খেলার শুরু।২০০৬ সালে আয়ারল্যান্ডের হয়েই পা রাখেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। ২০০৭ বিশ্বকাপে খেলেছেন আইরিশদের হয়েই। এক যুগ পর আরেকটি বিশ্বকাপে সেই তিনিই নেতৃত্ব দিলেন ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ জয়ে।তবে ইংল্যান্ডের সঙ্গে তার সম্পর্কও পুরোনো। বাবা আইরিশ হলেও তার মা ছিলেন ইংলিশ। ক্রিকেটকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখার পর থেকেই ইংল্যান্ডে খেলেছেন। ১৬ বছর বয়স থেকেই আছেন মিডলসেক্স কাউন্টি ক্লাবে। সময়ের পরিক্রমায় ইংল্যান্ডকে করে নিয়েছেন আপন। সেই কাউন্টিরই ঘরের মাঠ লর্ডসে উঁচিয়ে ধরলেন বিশ্বকাপের ট্রফি।মরগ্যানের অধীনে ইংল্যান্ড ২০১৫ বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকেই বাদ পড়ে। কিন্তু তাতেও পিছ পা হননি তিনি। তখন থেকেই ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ২০১৯ বিশ্বকাপের জন্য দল গোছাতে শুরু করেন এই আইরিশ।

চার বছর ধরে চলা সেই পরিকল্পনা আজ সফল। বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরে নিউজিল্যান্ডকে অবিশ্বাস্যভাবে হারিয়ে এখন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। আর সেই চ্যাম্পিয়ন দলের অধিনায়ক হওয়ায় আইরিশ মরগ্যানকে নিয়ে এখন আনন্দে মাতোয়ারা গোটা ব্রিটেন। যেই কাজটা (বিশ্বকাপ এনে দেয়া) ঘরের ছেলেরা (আগের অধিনায়করা) কখনো করে দেখাতে পারেনি, বাইরের এক ছেলে এসে সেটা করে দিয়েছে-মরগ্যানকে প্রশংসায় ভাসানো তাই অমূলক কিছু নয়।এদিকে গতকাল ম্যাচ শেষে মরগ্যানের কাছে ঘুরে ফিরে আসে আইরিশ প্রসঙ্গ। তাকে জিজ্ঞেস করা হয় আইরিশ সৌভাগ্যই কি তার দলকে বিশ্বকাপ এনে দিলো। দ্বিমত পোষণ করেননি মরগ্যান। তবে আইরিশ সৌভাগ্যের সঙ্গে সঙ্গে আল্লাহও যে তাদের পাশে ছিল সে কথাও মুখ ফুটে স্বীকার করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি আদিল রশিদের সঙ্গে আইরিশ সৌভাগ্য নিয়ে কথা বলছিলাম। সে আমাকে বলল আল্লাহও অবশ্যই আমাদের সঙ্গে আছেন। এটাই আমাদের দলের মধ্যে অটুট বন্ধনের কথা জানান দেয়। আমরা বিভিন্ন জায়গা থেকে উঠে এসেছি, কিন্তু আজ (গতকাল) আমরা একসঙ্গে লড়াই করেছি।

Print Friendly, PDF & Email