Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

০৭ নভেম্বর বায়তুশ শরফে ৪ দিন ব্যাপী ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) ও ইসলামী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হচ্ছে সাংবাদিক সম্মেলনে বায়তুশ শরফের পীর ছাহেব

বায়তুশ শরফ আনজুমনে ইত্তেহাদ বাংলাদেশ কর্তৃক পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (স.) উদ্যাপন উপলক্ষে ৪ দিন ব্যাপি ইসলামী সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা উপলক্ষ্যে পাখ-পাখালীর আসর, শানে মোস্তফা (স.), গুণীজন সংবর্ধনা ও আজিমুশশান ওয়াজ মাহফিল উপলক্ষ্যে জাতির বিবেক সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা ০৩ নভেম্বর রোজ রবিবার সকাল ১১ টায় বায়তুশ শরফ ইসলামী গবেষণা প্রতিষ্ঠানে বায়তুশ শরফের মাননীয় পীর ছাহেব বাহ্রুল উলুম আল্লামা শাহ মোহাম্মদ কুতুব উদ্দিন (ম.জি.আ) এর সভাপতিত্বে এক সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ও গবেষক প্রফেসর ড. মাওলানা সাইয়্যেদ মুহাম্মদ আবু নোমান, অধ্যক্ষ বায়তুশ শরফ আদর্শ কামিল (এম.এ) মাদ্রাসা, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) মাহফিল উদ্যাপন কমিটি ২০১৯ইং এর আহ্বায়ক মাওলানা মোহাম্মদ ওবাইদুল্লাহ, আলহাজ্ব রফিক আহমদ, ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন- ঈদে মিলাদুন্নবী (স.) কমিটি এর যুগ্ম আহ্বায়ক- আলহাজ্ব হাফেজ মোহাম্মদ আমান উল্লাহ, সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন- দৈনিক নয়া দিগন্ত চট্টগ্রাম এর ব্যুরো প্রধান নুরুল মোস্তফা কাজী। সভাপতির বক্তব্য পাঠ করেন- ইসলামিক ফাউ-েশন চট্টগ্রাম এর সাবেক বিভাগীয় পরিচালক মাওলানা আবুল হায়াত মোহাম্মদ তারেক। সাংবাদিক সম্মেলনে বায়তুশ শরফের পীর ছাহেব কেবলা বাহ্রুল উলুম আল্লামা শাহ মোহাম্মদ কুতুব উদ্দিন (ম.জি.আ) বলেন- মসি হস্তে সত্যের সন্ধানে সংগ্রামে রত জাতির গৌরব সম্মানিত সাংবাদিকবৃন্দ, বায়তুশ শরফ আনজুমনে ইত্তেহাদ বাংলাদেশ এর সম্মানিত সদস্যগণ ও উপস্থিত চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন স্থান হতে আগত মেহমানবৃন্দ- আস্সালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। বিশ্বব্যাপী মুসলিম জনগণ এমন একটি শুভ দিনের আগমনে আনন্দে উৎফুল্ল। হয়তো বা জান্নাতের ফেরেশতা, হুর-পরী গেলমানরাও আনন্দে মশগুল এই শুভ দিনের আগমনে।
পৃথিবীর মানুষ অমানবিক যাজকবাদের লৌহ পাদুকাতলে নিষ্ঠুরভাবে নিষ্পেষিত হয়ে তাদের ¯্রষ্টার কাছে তাদের প্রভুদের নিষ্ঠুর আচরণ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য করুণভাবে আর্তনাদ করছিল। কোন সময়ে পৃথিবীতে একজন আল্লাহ্র রাসূল আসার সময় এত পরিপক্ক হয়নি। পৃথিবীর মানবজাতির করুণ আর্তনাদের বিপরীতে রহমত হিসেবে পৃথিবীতে আগমন হলো রাহমাতুল্লিল আলামীনের। সাথে করে নিয়ে আসলেন অনন্ত যুগ ধরে লওহে মাহফুজে সংরক্ষিত সে জীবনবিধান, যা পরবর্তী বিশ্বের দ্রুত পরিবর্তনশীল সকল যুগের সকল মানব সম্প্রদায়ের জন্য সঠিক চলার পথের দিশারী। কোন যুগে কোন সময়ে কোন জাতির জন্য এ বিধান আজ পর্যন্ত অপ্রযোজ্য বলে প্রমাণিত হয়নি এবং ভবিষ্যতেও হবে না।
সে জীবনবিধান পৃথিবীতে সকল মানব সম্প্রদায়ের মাঝে প্রচার করার জন্য তাঁর চতুর্পার্শ্বে আগমন হলো একটা জাতির, যাদের প্রত্যেক জনই মহাপুরুষ। সাধারণত পৃথিবীতে যে কোন জাতির মধ্যেই একজন বা জন কয়েক সীমিত সংখ্যক মহাপুরুষের আগমন ঘটে। বিশ্ববাসী প্রথম এবং শেষ বারের মত এমন একটা জাতি বা মানব সম্প্রদায়কে দেখতে পেল, যারা একদিন ছিল অশিক্ষিত, মরুচারী, বেদুইন; তারাই রূপান্তরিত হলো এমন এক সম্প্রদায়ে, যাদের প্রত্যেকেই এক একজন মহামানব।
আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীনের সেই প্রিয় হাবীব, যিনি পৃথিবীর সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ কর্তব্যটি পালনের জন্য যেদিন পৃথিবীতে তশরিফ এনেছিলেন, সেদিন আমরা তথা সকল মুমিনদের জন্য নিঃসন্দেহে সর্বশ্রেষ্ঠ দিন। তাঁকে এবং তাঁর সহকারি মহামানব সম্প্রদায় অর্থাৎ তাঁর মহান সাহাবাগণের সম্পর্কে বিস্তারিত অবগত হওয়া আমাদের ঈমানী দায়িত্ব। সে পবিত্র দায়িত্বকে সম্মুখে রেখে এ দরবারের মহামান্য প্রতিষ্ঠাতা কুতুবুল আলম হযরত শাহ সূফী আলহাজ্ব মাওলানা মীর মোহাম্মদ আখতর (রহ.) এর সময় থেকে তার অনুগামী ভক্তগণের মাধ্যমে এ দিনটি যথাসম্ভব মর্যাদার সাথে পালিত হয়ে আসছে। সময় ও যুগের প্রয়োজনে প্রথম পর্যায়ে সীমিত আকারে, পরে ধীরে ধীরে একদিন, দুইদিন, তিনদিন থেকে বর্তমানে তা চারদিনব্যাপী পালিত হয়ে আসছে। এ চারদিনব্যাপী পালিত কর্মসূচি সমূহের বিস্তারিত বর্ণনা আপনারা আনজুমনে ইত্তেহাদের মাধ্যমে ছাপানো আকারে ইতোমধ্যে পেয়ে গেছেন আশা করি।
এ বছর চারদিনব্যাপী ইসলামি সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় ১৫টি বিষয়ে ২৪টি গ্রুপে প্রতিযেগিতা অনুষ্ঠিত হবে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের বিভিন্ন স্কুল-কলেজ- মাদরাসা- বিশ্ববিদ্যালয় হতে প্রায় সহ¯্রাধিক প্রতিযোগী ছাত্রছাত্রী এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবে। এ চারদিন বায়তুশ শরফ অঙ্গণে ছাত্রছাত্রী, তাদের অভিভাবক ও দর্শক-শ্রোতার উপস্থিতিতে একটি মনোরম পরিবেশ পরিলক্ষিত হবে।
বায়তুশ শরফের পীর ছাহেব কেবলা বাহ্রুল উলুম আল্লামা শাহ মোহাম্মদ কুতুব উদ্দিন (ম.জি.আ) পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (স.) উদ্যাপন ও বায়তুশ শরফের নানামুখী কার্যক্রম সম্মন্ধে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেন।
এতে আরো উপস্থিত ছিলেন-বায়তুশ শরফ আন্জুমনে ইত্তেহাদ বাংলাদেশ এর সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ আমান উল্লাহ খান, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব লুৎফল করিম, মজলিসুল উলামা বাংলাদেশ এর মহাসচিব মাওলানা মামুনুর রশিদ নূরী, কেন্দ্রীয় কমিটির কোষাধ্যক্ষ আলহাজ্ব মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এ.বি.কে মহিউদ্দিন শামীম, আবুল কাশেম খান, আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন, ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আবু তাহের, শাহ্জাদা মাওলানা ছলাহ্ উদ্দিন বেলাল, হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন, মাওলানা আব্দুশ শাকুর, মাওলানা মোহাম্মদ নুর উদ্দিন মাহমুদ ও মুহাম্মদ এহছানুল হক মিলন প্রমুখ।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন- মাসিক দ্বীন দুনিয়ার সম্পাদক- আলহাজ্ব মুহাম্মদ জাফর উল্লাহ।
সাংবাদিক সম্মেলনে চট্টগ্রামের স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে প্রকাশিত ও প্রচারিত বিভিন্ন পত্রিকা ও টিভি চ্যানেলের বিপুল সংখ্যক সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।
এ বছর বায়তুশ শরফ আন্জুমনে ইত্তেহাদ বাংলাদেশ জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে যে তিনজন গুণীব্যক্তিকে সংবর্ধনা দেয়া হবে এবং একজন প্রয়াত গুণীকে স্মরণ করা হবে, তাঁরা হলেন-
১) প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন হিসেবে কর্মজীবনের সূচনালগ্ন হতে সর্বপর্যায়ে ইসলামের সুমহান আদর্শের প্রচার-প্রসার, বিশুদ্ধ কুরআন-হাদিস চর্চা ও শিক্ষা প্রদানের মাধ্যমে হাজার হাজার শিক্ষার্থীর মাঝে স্বীয় ধর্মের সৌন্দর্য্য প্রস্ফুটিত করার ক্ষেত্রে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ জনাব প্রফেসর ড. মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন তালুকদার, অধ্যাপক, আরবি বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।
২) জনাব প্রফেসর ডা. এ.জে.এম. সাদেক, শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ, টঝঞঈ চট্টগ্রাম। চিকিৎসা সেবার মাধ্যমে দুস্থ-মানবতার কল্যাণে বিশেষ অবদানের জন্য তাঁকে এই সংবর্ধনা দেয়া হচ্ছে।
৩) জনাব আলহাজ্ব রফিক আহমদ, নির্বাহী প্রধান, মমতা, চট্টগ্রাম; যিনি জীবনের সূচনালগ্ন থেকে সততা ও বিশ্বস্ততার মাধ্যমে আর্তমানবতার সেবা, শিক্ষার সম্প্রসারণ, ইসলামি সংস্কৃতির বিকাশ ও সমাজকল্যাণের ক্ষেত্রে অনন্য অবদান রেখেছেন এবং রেখে চলেছেন।
৪) চতুর্থ গুণীজন এমন এক ব্যক্তি, যিনি কর্ম জীবনের প্রথমলগ্ন থেকে সততা ও বিশ্বস্ততার সাথে সাংবাদিকতা পেশা অবলম্বনের মাধ্যমে সত্যের প্রকাশ, আর্তমানবতার সেবা, শিক্ষার সম্প্রসারণ ও ইসলামি সংস্কৃতি বিকাশের ক্ষেত্রে অনন্য অবদান রেখেছেন। তিনি হচ্ছেন মরহুম সাংবাদিক হেলাল হুমায়ুন। তাঁকে মরণোত্তর স্মরণ ও সংবর্ধনা প্রদান করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য যে, এ বছর চারদিনব্যাপী ইসলামি সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় ১৫টি বিষয়ে ২৪টি গ্রুপে প্রতিযেগিতা অনুষ্ঠিত হবে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের বিভিন্ন স্কুল-কলেজ- মাদরাসা- বিশ্ববিদ্যালয় হতে প্রায় সহ¯্রাধিক প্রতিযোগী ছাত্রছাত্রী এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবে। এ চারদিন বায়তুশ শরফ অঙ্গণে ছাত্রছাত্রী, তাদের অভিভাবক ও দর্শক-শ্রোতার উপস্থিতিতে একটি মনোরম পরিবেশ পরিলক্ষিত হবে।
৯ রবিউল আউয়াল বাদে মাগরিব ছোটদের অংশগ্রহণে বিশেষ অনুষ্ঠান ‘পাখপাখালির আসর’, ১০ রবিউল আউয়াল বাদে মগরিব মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) কে নিবেদিত গজল, উর্দু-ফারসি-বাংলা কবিতা আবৃত্তি, প্রভৃতিতে মুখরিত শানে মোস্তফা (সা.) মাহফিল, ১১ রবিউল আউয়াল বাদে মাগরিব ‘গুণীজন সংবর্ধনা’ ও ১২ রবিউল আউয়াল বাদে মাগরিব ‘আজিমুশশান ওয়াজ মাহফিল’ ও আখেরী মুনাজাত অনুষ্ঠিত হবে।
পরিশেষে বায়তুশ শরফ আনজুমনে ইত্তেহাদ বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য ফটিকছড়ির সাদেক নগর নিবাসী জনাব আলহাজ্ব মোহাম্মদ লিয়াকত আলী চৌধুরী এর মৃত্যুতে পীর সাহেব হুজুর কেবলা (ম.জি.আ) গভীরভাবে শোক প্রকাশ করেন। বাদে এশা চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় বায়তুশ শরফ জামে মসজিদে মরহুমের জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

Print Friendly, PDF & Email