Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বান্দরবান জেলায় ২০১৯ সালে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের জন্য পুনর্বাসন সহায়তা নিয়ে- কারিতাস বাংলাদেশ


বাসুদেব বিশ্বাস,বান্দরবান প্রতিনিধি:
গত বছরের ৭ জুলাই থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত বান্দরবান পার্বত্য জেলায় অতি বৃষ্টির ফলে সৃষ্ট বন্যায় ও পাহাড় ধ্বসে ক্ষতিগ্রস্তদের জরুরি সহায়তায় Start Fund Alert তহবিল-এর আওতায় ‘কারিতাস বাংলাদেশ’ ও ‘তৈমু’ বেসরকারি সংস্থা বান্দরবান জেলার থানচি, রুমা ও রোয়াংছড়ি উপজেলায় ২ হাজার ১শত ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে জরুরি সহায়তা (নগদ অর্থ অনুদান) বিতরন করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় কারিতাস বাংলাদেশ পুনরায় বান্দরবান পার্বত্য জেলার বান্দরবান সদর, রোয়াংছড়ি, রুমা, থানচি ও লামা উপজেলার দুটি পৌরসভাসহ মোট ১৭টি ইউনিয়নের কাজ বাস্তবায়ন করবে।
পরিবারের আর্থ-সামাজিক পরিবর্তন ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ততা হতে কাটিয়ে উঠার লক্ষ্যে “ Recovery Assistance for the poor households severely affected by floods 2019 in Bandarban District ” ২০১৯ Start Fund Alert ” প্রকল্পের নামে আরেকটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করার সুযোগ পাচ্ছে কারিতাস বাংলাদেশ। উক্ত প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজ আরম্ভ করার জন্য বুধবার দুপুরে বান্দবান জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে প্রকল্প অবহিতকরন সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় কারিতাস চট্টগ্রাম অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক জেমস্ গোমেজ এর সভাপতিত্বে এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ শামীম হোসেন। এসময় কারিতাস বান্দরবানের প্রকল্প ম্যানেজার সাইমন্ড শ্যামল আসাম এর সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম জাহাঙ্গীর, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: নোমান হোসেন, কারিতাস বান্দরবানের কর্মসূচী কর্মকর্তা রুপনা দাশ, কারিতাস বান্দরবানের প্রকল্প ম্যানেজার সাইমন্ড শ্যামল আসাম, বান্দরবান প্রেসক্লাবের সভাপতি মনিরুল ইসলাম মনু, কারিতাস বান্দরবানের রির্পোটিং এন্ড ডকুমেন্টেশন অফিসার সুবাস ত্রিপুরাসহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা ।

সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখতে গিয়ে কারিতাস বান্দরবানের কর্মসূচী কর্মকর্তা রুপনা দাশ বলেন, বিগত জুলাই ২০১৯ সালে বান্দরবান পার্বত্য জেলায় অতিবৃষ্টির ফলে সৃষ্ট বন্যায় ও পাহাড় ধ্বসে ক্ষতিগ্রস্তদের জরুরি সহায়তায় ঝঃধৎঃ ঋঁহফ অষবৎঃ তহবিল এর আওতায় ‘কারিতাস বাংলাদেশ’ ও ‘তৈমু’ বেসরকারি সংস্থা পার্বত্য বান্দরবান জেলার থানচি, রুমা ও রোয়াংছড়ি উপজেলায় ২ হাজার ১শত ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে জরুরি সহায়তা (নগদ অর্থ অনুদান) বিতরন বাস্তাবায়নে সকলের সহয়োগীতায় সুন্দর ও সফলভাবে সমাপ্তি করতে পেরেছি বিধায় এই প্রকল্প আবার পেয়েছি ।
এসময় বিশেষ অতিথি বান্দরবান সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: নোমান হোসেন বলেন, বিগত বছরে বন্যায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বান্দরবান সদর। তিনি প্রস্তাব রাখেন যদি সম্ভব হয় বান্দরবান সদরের জন্য কিছু সহায়তা বাড়িয়ে দেওয়া। তিনি এসময় বান্দরবান এর এনজিও এর প্রতিমাসের মাসিক সমন্বয় সভায় প্রতিবেদনের কার্যক্রম নিয়ে প্রশংসা করেন ও খুবই সন্তোষজনক বলে উল্লেখ করেন।
প্রধান অতিথি মোঃ শামীম হোসেন বলেন, এনজিও বাংলাদেশ স্বাধীনতার আগে থেকে কাজ করছে আর দেশের উন্নয়নের বিভিন্ন দিকে সর্ম্পৃক্ত আছে। এসময় তিনি এনজিও কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের আন্তরিকতার সাথে কাজ করা ও দেশের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে তরান্বিত করার আহবান জানান।
কারিতাস চট্টগ্রাম অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক জেমস্ গোমেজ তার সভাপতির বক্তব্যে বলেন, কারিতাস সব সময় চেষ্টা করে প্রকল্প শেষে অবহিতকরন সভা না করে সকলের অংশগ্রহনের জন্য কার্যক্রমের শুরুতে প্রকল্পের অবহিতকরন সভা করার। এসময় তিনি আগামীতে কারিতাস বাংলাদেশের পাশে থাকার জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করে।

Print Friendly, PDF & Email