Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

নারী উদ্যোক্তাদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় দেশের সকল মহিলা চেম্বারের আলোচনা সভা চট্টগ্রামে উইমেন্স চেম্বারের অনলাইন মিটিং

হোসেন বাবলাঃ৫মে(চট্টগ্রাম)
করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় দেশের সকল মহিলা চেম্বার ও বিভিন্ন খাতের নারী উদ্যোক্তাদের অংশগ্রহণে ব্যবসার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা বিষয়ক এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এফবিসিসিআই এর প্রাক্তন ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট ও চিটাগাং উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড এন্ডাস্ট্রি এর প্রেসিডেন্ট মনোয়ারা হাকিম আলীর নেতৃত্বে গতকাল ৪ মে এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।আলোচনা সভায় করোনা ভাইরাসের প্রভাবে পণ্য বিক্রি বন্ধ থাকায় নিরাপদে থেকেই আর্থিক ক্ষতি পুষিয়ে নিতে কি কি করণীয় সে বিষয়ে আলোচনা করেন দেশের সকল মহিলা চেম্বারের নেতৃস্থানীয়রা।

আলোচনায় উদ্যোক্তাদের প্রনোদনা পেতে ভোগান্তির বিষয়গুলো উঠে আসে। করোনাভাইরাসের প্রভাবে পণ্য বিক্রি বন্ধ থাকায় একদিকে যেমন উদ্বেগ-উৎকন্ঠায় ভুগছেন দেশের নারী উদ্যোক্তারা আবার তাদের অভিযোগ- সরকার প্রণোদনা ঘোষণা করলেও ব্যাংকগুলো বলছে, তারা কোন নির্দেশনা পায়নি। এমন পরিস্থিতিতে ব্যাংকগুলোর স্বচ্ছতার পাশাপাশি ব্যবসায় ভ্যাট মওকুফ সুবিধাও চেয়েছেন উদ্যোক্তারা।

উক্ত আলোচনায় মনোয়ারা হাকিম আলী বলেন মহামারী করোনার আঘাতে সারা বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশেও ব্যবসা-বাণিজ্য, কল-কারখানা, অফিস-আদালত দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার ফলে জন-জীবন স্থবির হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে এই মহামারীর থাবায় নারী উদ্যোক্তাদের ব্যবাসা-বাণিজ্যে ধস নেমেছে। বর্তমান পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকারের পাশাপাশি সকলেরই সহযোগিতা প্রয়োজন।

মনোয়ারা হাকিম আলী’র সঞ্চালনায় আলোচনায় আরো বক্তব্য রাখেন এফবিসিসিআই এর ভাইস-প্রেসিডেন্ট ও বাগেরহাট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি এর সদস্য হাসিনা নেওয়াজ, এফবিসিসিআই এর পরিচালক ডা. প্রীতি চক্রবর্তী, বাংলাদেশ উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি এর প্রেসিডেন্ট নাজ ফারহানা, সিরাজগঞ্জ উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট শারিতা মিল্লাত, এ্যাসোসিয়েশান অফ ফ্যাশন ডিজাইনার্স প্রেসিডেন্ট মানতাসা আহমেদ, এ্যাসোসিয়েশান অফ বাংলাদেশ এর প্রেসিডেন্ট সমী কায়সার, বিউটি সার্ভিস ওনার্স এ্যাসোসিয়েশান এর প্রেসিডেন্ট কানিজ আলমাস খান, চিটাগাং উইম্যান চেম্বার সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট ডা. মুনাল মাহবুব, সিলেট উইম্যান চেম্বার এর প্রেসিডেন্ট স্বর্ণলতা রায়, গ্রাসরুট উইম্যান এন্ট্ররপ্রিনিয়ার্স প্রেসিডেন্ট মৌসুমী ইসলাম, রংপুর উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট আনোয়ারা ফেরদৌসি পলি, বরিশাল উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট বিলকিস আহমেদ লিলি, পটুয়াখালী উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট ইসমত জেরিন খান, রাজশাহী উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট রোসিতি নাজনীন, বান্দরবান উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট লালসানি লুসাই, কিশোরগঞ্জ উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট ফাতেমা জোহরা আক্তার, সুনামগঞ্জ উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট হোসনা হুদা, ফরিদপুর উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট সেলিনা মাহবুব, শেরপুর উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট মনিজা মাসুদ, ময়মনসিংহ উইম্যান চেম্বার প্রেসিডেন্ট লুচি আক্তারী মাহাল, দিনাজপুর উইম্যান চেম্বার এর প্রেসিডেন্ট জান্নাতুস সাফা ও কুমিল্লা উইম্যান চেম্বার এর ভারপ্রাপ্ত প্রেমিডেন্ট চামেলী মনির।

কানিজ আলমাস খান বলেন, ব্যাংকের শাখা গুলো বলছে, তারা এখনও কোন নির্দেশনা পাননি। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের বাঁচাতে পারলে আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পারবো।শারিতা মিল্লাত বলেন, এখন কোন ব্যবসা নেই। তবে এই সঙ্কটে ব্যবসাকে ই-কমার্স মুখি করতে হবে। চলমান পরিস্থিতিতে ব্যবসার ধারণা বদলাতে হবে।শমী কায়সার বলেন, নারী উদ্যোক্তাদের ব্যবসা ই- কমার্স মুখী করতে হলে ডিজিটাল মার্কেটিং বুঝতে হবে। এজন্য তথ্য ব্যবস্থাপনা সর্ম্পকে জানতে হবে। নারী উদ্যোক্তাদের জন্য ভ্যাট মওকফু করা জরুরি।

মানতাসা আহমেদ বলেন, প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকার বাজার দেশিয় ফ্যাশন খাতে। বৈশাখ ও ঈদের পোশার তৈরি থাকার পরও আমরা বসে আছি। সরকার যে প্যাকেজ দিয়েছে, তা কিভাবে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা কিভাবে পাবে, সেই দিক-নির্দেশনা দরকার। পিছিয়ে পড়া তৃণমূলের উদ্যোক্তাদের প্রণোদনা নিশ্চিত করতে হবে। ব্যাংকগুলোকে স্বচ্ছতা নিশ্চিত হবে।

স্বণলতা রায় বলেন, আমাদের পণ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে কাঁচামালের দাম সহনীয় রাখার দাবি জানাই।

Print Friendly, PDF & Email