Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

সৎ মায়ের বিরুদ্ধে সম্পত্তি দখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন ”১২নং খৈয়াছড়া ইউপিতে”আশ্রয়স্থল কেড়ে নিয়ে নির্যাতনের শিকার অসহায় পরিবারের

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ:০৩জুন(চট্টগ্রাম)

মিরসরাই উপজেলার ১২নং খৈয়াছড়া ইউপির নিশ্চিতপুর গ্রামের ৬নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা হাজী নুরুল ইসলামের বৈধ ওয়ারিশগন ০৩রা জুন বুধবার দুপুরে বাংলাদেশ নাগরিক সাংবাদিক ক্লাব মিলনায়তনে সৎ মায়ের বিরুদ্ধে সম্পত্তি দখলের অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলন করেন। ওয়ারিশগনের মধ্যে ১ম স্ত্রীর(সালেহা বেগম)’র সন্তান মোঃআবুল কাশেম(৪৫),মোঃহাশেম(৪১),জয়নাল(৩৮),হারুণ উর রশিদ(৩৩), মোছাং জাহানারা বেগম(৫০), সাবিনা ইয়াছমিন(২৯)স্বয়ং উপস্থিত থেকে লিখিত বক্তব্যে এই অভিযোগ করে উচ্চ প্রশাসনের নিকট ন্যায় বিচার কামনা করেন।

তারা বলেন, পিতা হাজী নুরুল ইসলাম ১ম স্ত্রীর(সালেহা বেগম)মৃত্যু বরণ কালে আমরা ৬জন বৈধ ওরশজাত ছেলে-মেয়ে ১২নং খৈয়াছড়া ইউপির নিশ্চিতপুর গ্রামে পৈত্রিক বসত ভিটেয় শান্তিপূর্ন বসবাস করে আসছি। মায়ের মৃত্যু হলে পিতা ২য় স্ত্রী কে বিবাহ করে এবং ২/৩মাস যেতেই বিভিন্ন সামাজিক অনাচার সৃষ্টি হলে ঐ ২য় স্ত্রী কে পারবারিক কলহের জেরে তালাক দিয়ে সামাজিক ভাবে বিদায় দেন। এর পরেই পিতা ৩য় স্ত্রী তাহেরা বেগম(৫০) বিবাহ করেন।

এই ৩য়স্ত্রী তাহের বেগম ও তার সাঙ্গু-পাঙ্গুরা মিলে(সৎ মাতার) সন্ত্রাসী বাহিনী মিলে আমাদের বৈধ সম্পত্তি ৬০শত নাল জমি,মৌজা-পূর্ব মায়ানী,R.S দাগ নং-১২৬৭৭১/১২৬৭৪,যার বর্তমান মূল্য কোটি কোটি টাকার অধিক।সেই সম্পত্তি জোর পূর্ব অত্যন্ত কম মূল্যে বি.এস.আর এম’র নিকট অবৈধ ভাবে বিক্রির অপচেষ্টা করছেন বলে জানিয়েছেন। তারা সেই সম্পত্তিতে ন্যায্য পাওনা দাবি করে স্থানীয় ১২নং খৈয়াছড়া ইউপির চেয়ারম্যান জাহেদ ইকবাল চৌধুরীর নিকট শালিশি বৈঠক ডাকলে তার সৎ মা ও পিতার পক্ষ কেউ বৈঠকে হাজির হন না বলে জানাই।
তারা সংবাদ সম্মেলনে আরো জানাই,সৎ মাতার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে বর্তমানে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাসরত গৃহ থেকে অবৈধ-জোর পূর্বক উচ্ছেদ সহ বিভিন্ন হামলা-মামলা এবং গুম-খুনের হুমিক দিচ্ছেন। নির্যাতিতরা এই বিষয়য়ে মিরসরাই থানা কে অবগত করে কোন সু-বিচার পাইনি।

আর যেখানে যাচ্ছেন, সেখানেই নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বলে গুরুতর অভিযোগ করেন।তারা সত্যিকার ভাবে বাচাঁর জন্যে দেশের উচ্চ প্রশাসন তথা-প্রধানমন্ত্রী,স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী,পুলিশের ডিআইজি, জেলা প্রশাসক, সিএপমির পুলিশ কমিশনার, পৌর চেয়ারম্যান , স্থানীয় কাউন্সিলর কে বিষয়টি সু-বিবেচনা করে দ্রুত কার্য্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন করার বিশেষ ভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন অসহায় পরিবার টি।

অন্যথায় নির্যাতনের শিকার হয়ে একটি পরিবার সংগঠন বিলিন হয়ে যাবে অন্যায় আর অত্যাচারের পিষ্টে।তারা দোষি সৎ মাতা তাহেরা বেগম(৫০)গংদের কঠোর আইনি শাস্তি দাবি জানান।

Print Friendly, PDF & Email