Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

নির্বাসনের পর নতুন যে ভুলের কথা স্বীকার করলেন আমির

 

স্পট ফিক্সিংয়ের জন্য পাঁচ বছর ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত ছিলেন। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে পাঁচ বছর আগে ক্রিকেটে ফিরেছেন পাকিস্তানি পেসার মোহম্মদ আমির। কিন্তু নির্বাসনের পর তিনটি ফরম্যাটেই তার খেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া ভুল ছিল বলে মনে করেন এই বাঁহাতি পেসার।

ইংল্যান্ডে ২০১০ স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকার কারণে আমিরকে পাঁচ বছরের জন্য নির্বাসিত করেছিল আইসিসি। ২০১৫ সালে তিনি সকল ফর্ম্যাটে ফিরে এসেছিলেন। কিন্তু এত প্রতিভাবান হওয়া সত্ত্বেও মাত্র ৩৬টি টেস্ট ম্যাচ খেলে গত বছর জুলাইয়ে টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন আমির।

ক্রিকেটপাকিস্তানকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে আমির ক্রিকেটারদের পরামর্শ দেন যেন তার মতো ভুল যেন কেউ না করেন। মাত্র একটি বা দু’টি ফর্ম্যাট বেছে নিতে পারেন।

আমির বলেন, জাতীয় দলে প্রত্যাবর্তনের পরে তিনটি ফর্ম্যাট খেলে আমি বড় ভুল করেছি। আমি ভবিষ্যতের ক্রিকেটারদের একই ভুল না করার পরামর্শ দিতে চাই। প্রত্যেকেরই প্রথমে এক বা দুটি ফর্ম্যাটে খেলে তাদের ক্ষমতা পরীক্ষা করা উচিত এবং একটি ভালো ছন্দে প্রবেশ করা উচিত। যদি তারা বিশ্বাস করে যে তারা পারছে তবেই তাদের তৃতীয় ফর্ম্যাটে অংশ নেওয়া উচিত।

তিনি আরও জানান যে, পেসারদের আরও বেশি যত্নবান হওয়া দরকার। কারণ কোনও ভুল সিদ্ধান্ত তাদের ক্যারিয়ারকে মারাত্মকভাবে প্রভাবিত করতে পারে।
আমির বলেন, পেসারদের আরও যত্নবান হওয়া দরকার। সকল ফর্ম্যাটে ফিরে আসার ভুল সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরে আমার দু’বছর পরে সমস্যা হয়েছিল। ২০১৮ সালে আমি গুরুতর চোট পাই। এই কারণে আমি একা নিজেকে সাদা বলের ক্রিকেটে সীমাবদ্ধ রেখেছি। আমি আশাবাদী যে, আমি আমার ক্যারিয়ার প্রায় পাঁচ থেকে ছয় বছরের মধ্যে বাড়িয়ে দিতে পেরেছি।

ইংল্যান্ডে সফররত পাকিস্তান দলে ফেরার সুযোগ পেয়েছেন আমির। হারিস রাউফের পরিবর্তে দলে ঢুকছেন তিনি। এই মুহূর্তে পাকিস্তান ক্রিকেট দল ইংল্যান্ডে রয়েছে। তবে গতকাল বুধবার রাউফের ইংল্যান্ড উড়ে যাওয়ার কথা ছি। দ্বিতীয় সন্তানের জন্মের সময় স্ত্রী’র পাশে থাকতে টি-২০ সিরিজ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন রাউফ। তাঁর পরিবর্তে আমিরকে দলে নেন প্রধান নির্বাচক ইনজামাম উল হক।

কিন্তু লন্ডনের বিমানে উঠতে গেলে আমেরকে দুইবার কোভিড-১৯ টেস্ট দিতে হবে। শুধু তাই নয়, দুইবার তার রিপোর্ট নেগেটিভ আসতে হবে। তবেই লন্ডনের বিমানে ওঠার ছাড়পত্র পাবেন বাঁ-হাতি পাক পেসার৷

Print Friendly, PDF & Email