Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

স্বপ্ন বুনছেন পার্বত্যাঞ্চলের প্রান্তিক কৃষক,পাহাড়ে উন্নত ফলনের আশাঃ উন্নয়ন বোর্ড

নিশা তাসলিমা ও হোসেন বাবলাঃ০৬আগষ্ট

মহামারী করোনা ভাইরাস (কোভিড ১৯) প্রাদুর্ভাব মোকাবেলা ও দুর্যোগ কাটিয়ে উঠতে দুর্গম প্রান্তিক কৃষকদের জন্য ব্যতিক্রম উদ্যোগ গ্রহন করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড।খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামটি ও বানন্দবান এই তিন পার্বত্য জেলায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন বিভিন্ন প্রকল্পের উপকারভোগী ছয় হাজার কৃষক পরিবারের মাঝে বিনামূল্যে বিভিন্ন প্রজাতির সবজি বীজ ও কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরণ করা হচ্ছে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড (পাচউবি) থেকে বিনামূল্যে উন্নতমানের বিভিন্ন প্রজাতির সবজি বীজ ও কৃষি যন্ত্রপাতি পেয়ে পাহাড়ে উন্নত ফলনের স্বপ্ন বুনছেন পার্বত্যাঞ্চলের প্রান্তিক কৃষকরা। তার মধ্যে খাগড়াছড়িতেই রয়েছে তিন হাজার প্রান্তিক কৃষক পরিবার।

পাচউবি’র টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের খাগড়াছড়ি জেলা প্রকল্প ব্যবস্থাপক মো. মতিউর রহমান জানান, বিভিন্ন উপজেলায় টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের উপকারভোগী ১৫১৮ কৃষক পরিবারকে উন্নত মানের বিভিন্ন প্রজাতির সবজি বীজ ও কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে।মিশ্রফল উৎপাদন প্রকল্পের সহকারী প্রকল্প পরিচালক মদন চাকমা জানান, মিশ্রফল উৎপাদন প্রকল্পের উপকারভোগী ১০০০ কৃষক পরিবারকে বিভিন্ন প্রজাতির সবজি বীজ ও কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরণ শেষ হয়েছে।

এছাড়াও বৃহস্পতিবার সকাল থেকে খাগড়াছড়ির বিভিন্ন উপজেলায় রাবার উৎপাদন প্রকল্পের মাধ্যমে দুর্গম এলাকার ৪৮২ প্রান্তিক কৃষি পরিবারকে উন্নতমানের বিভিন্ন প্রজাতির সবজি বীজ ও কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরণ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন, রাবার উৎপাদন প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক জ্যোতিষ বসু ত্রিপুরা। দুইটি উপজেলা বাকি আছে, তাও দু একদিনের মধ্যে বিতরণ সম্পন্ন হবে বলে তিনি জানান।
বিনামূল্যে উন্নতমানের বিভিন্ন প্রজাতির সবজি বীজ ও কৃষি যন্ত্রপাতি পেয়ে খুবই খুশি মিশ্রফল উৎপাদন প্রকল্পের উপকারভোগী, দীঘিনালা উপজেলার ভৈরফা এলাকার কৃষক অলেন্দ্র ত্রিপুরা ও রাবার উৎপাদন প্রকল্পের উপকারভোগী প্রান্তিক কৃষক ধনী রঞ্জন ত্রিপুরা। তাদের ৫ একর টিলা ভূমিতে সবজি চাষ করে সুখের স্বপ্ন বুনছেন তারা।এবিষয়ে, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম বিশোর ত্রিপুরা (এনডিসি) বলেন, পার্বত্যাঞ্চলের প্রান্তিক কৃষকরা যাতে করোনা ভাইরাস (কোভিড ১৯) প্রাদুর্ভাব মোকাবেলা ও দুর্যোগ কাটিয়ে উঠতে পারে এবং স্বল্প সময়ে কৃষকদের আর্থিক উন্নয়নের লক্ষে এমন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, পাহাড়ের প্রান্তিক কৃষকদের আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী করে তুলছে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ‘মিশ্র ফল বাগান নামের একটি প্রকল্প’। এ প্রকল্পের মাধ্যমে তিন পার্বত্য জেলায় ৪৯৫০ টি অসচ্ছল প্রান্তিক চাষী পরিবারকে মিশ্র ফলের বাগান সৃজন করে দেয়া হয়েছে। একসময়ের পরিত্যক্ত ও অনাবাদি পাহাড়ের ঢালু জমিতে গড়ে উঠেছে দুই সহস্রাধিক মিশ্র ফলের বাগান। এ প্রকল্পের মধ্য দিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রামে আবাদি জমির পরিমাণ বৃদ্ধির পাশাপাশি সৃষ্টি হচ্ছে কর্মসংস্থানের। বাগানের উৎপাদিত বিভিন্ন ফল-ফসল বিক্রি করে আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন প্রান্তিক কৃষকরা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬-১৭ অর্থবছর থেকে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের উদ্যোগে প্রান্তিক কৃষকের জন্যে মিশ্র ফল বাগান প্রকল্পসহ নতুন নতুন নানামুখী প্রকল্পের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা (এনডিসি)।

তথ্যসূত্র(নয়া বাংলা)

Print Friendly, PDF & Email