Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

নিজেকে স্বাধীন মনে হচ্ছে’, নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তির পর শ্রীশান্ত

ভারতীয় পেসার শান্তাকুমারন শ্রীশান্ত ২০১৩ আইপিএলে স্পট ফিক্সিং করে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। নানা আইনি লড়াই পেরিয়ে আজ শেষ হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। ক্রিকেটে ফিরতে আর বাঁধা রইল না ভারতের হয়ে ২০০৭ টি-টোয়েন্টি ও ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপজয়ী এই পেসারের।

সাত বছর পর ফিরতে পারবেন ক্রিকেট মাঠে। সেই আনন্দের কথা লুকাননি ৩৭ বছর বয়সী এই পেসার, ‘নিজেকে আজ স্বাধীন মনে হচ্ছে। এই দিনটির জন্যই আমি ও আমার পরিবার অপেক্ষা করেছে। ক্রিকেট মাঠে ফিরতে পারবো- এটা ভেবে স্বস্তি বোধ করছি।’

রাজস্থান রয়্যালসে খেলার সময় স্পট ফিক্সিংয়ের দায়ে ২০১৩ সালে গ্রেফতার হন শ্রীশান্ত ও একই দলের দুই ভারতীয় ক্রিকেটার অজিত চান্দিলা ও অঙ্কিত চাভান। এই ঘটনায় এই তিন ক্রিকেটারকে আজীবন নিষিদ্ধ করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।

সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে শ্রীশান্ত আইনি লড়াই শুরু করেন। ২০১৫ সালে দিল্লি আদালত এরপর তাকে ‘নির্দোষ’ ঘোষণা করে। কেরালা হাইকোর্ট ২০১৮ সালে বিসিসিআইকে আজীবন নির্বাসনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে নির্দেশ দেয়।

গত বছর একই মামলায় সুপ্রিমকোর্ট শ্রীশান্তকে ‘দোষী’ চিহ্নিত করলেও বিসিসিআইকে শাস্তি কমানোর জন্য নির্দেশ দেয়। সুপ্রিম নির্দেশেই শ্রীশান্তের শাস্তির মেয়াদ কমে সাত বছরে নেমে আসে।

নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি মিললেও ঘরোয়া ক্রিকেটে শ্রীশান্তের মাঠে নামা আটকে দিয়েছে করোনা মহামারি। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবর, করোনার প্রকোপ না কমায় চলতি বছর ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেট মাঠে গড়ানোর সম্ভাবনা শূন্যের কোঠায়।

ভারতের হয়ে ২৭ টেস্টে ৮৭ ও ৫৩ ওয়ানডে খেলে শ্রীশান্তের শিকার ৭৫ উইকেট। আর ১০ টি-টোয়েন্টিতে নিয়েছেন ৭ উইকেট।

Print Friendly, PDF & Email