Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

সোনিকার মৃত্যুর মামলায় বিক্রমের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

গাড়ি দুর্ঘটনায় মডেল সোনিকা সিং চৌহানের মৃত্যুর মামলার তিন বছরেরও বেশি সময় পর হলো। অবশেষে চার্জ (অভিযোগ) গঠন করা হয়েছে বিক্রম চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে।

আজ মঙ্গলবার কলকাতার আলিপুর আদালতে বিক্রমের বিরুদ্ধে ৩০৪ ধারায় নতুন করে চার্জ গঠন করা হয়। অর্থাৎ অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলায় অভিযুক্ত বিক্রম চট্টোপাধ্যায়। এ ছাড়া বেপরোয়া গাড়ি চালানোসহ আইপিসির একাধিক ধারা আরোপ করা হয়েছে বিক্রমের বিরুদ্ধে। পূজার পর এই মামলার বিচার প্রক্রিয়া শুরু হবে।

আজ আদালতে দাঁড়িয়ে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন বিক্রম।

মামলার চার্জ গঠনের শুনানি শেষ হয়েছিল আগেই, তবে লকডাউনের জেরে আলিপুর আদালত বন্ধ থাকায় সেই সংক্রান্ত রায় দেয়া সম্ভব হয়নি। আলিপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা বিচারক পুষ্পল শতপথীর এজলাসে শুনানি হয়েছিল এই মামলার। অবশেষে আজ চার্জ গঠন করা হলো।

আপতত জামিনে রয়েছেন বিক্রম।  তিন বছরেরও বেশি সময় আগে, ২০১৭-র ২৯ এপ্রিল ভোরে গাড়িতে ফিরছিলেন বিক্রম ও সোনিকা। গাড়ির স্ট্রিয়ারিং ছিল বিক্রমের হাতে, পাশের আসনে ছিলেন বান্ধবী সোনিকা। প্রায় ১০০ কিলোমিটার বেগে থাকা ওই এসইউভি লেক মলের কাছে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার মাঝের ডিভাইডারে ধাক্কা মেরে উল্টে যায়। তাতেই মৃত্যু হয় সোনিকার, গুরুতর আহত হন বিক্রম চট্টোপাধ্যায়।

বিক্রমের বিরুদ্ধে পুলিশ প্রথমে ৩০৪ (এ) ধারায় গাফিলতির জেরে মৃত্যু, বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানো এবং সম্পত্তি নষ্টের মতো ধারায় মামলা রুজু করেছিল, যা নিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনা উঠে। কারণ, প্রত্যেকটি জামিনযোগ্য ধারা।

এই মামলায় বিশেষ তদন্তকারী দল বিক্রমের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৪ ধারায় অনিচ্ছাকৃত খুনের অভিযোগে চার্জশিট দাখিল করেছিল আলিপুর আদালতে। নিম্ন আদালত এই মামলা থেকে বিক্রমকে অব্যাহতি না দেওয়ায় হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন অভিনেতার আইনজীবীরা। তবে ২০১৯-এর  মাঝামাঝি কলকাতা হাইকোর্ট সেই আবেদন খারিজ হয়ে যায়। নিম্ন আদালতকে দ্রুত কোন ধারায় শুনানি হবে তা ঠিক করার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। বিক্রমের আইনজীবীরা গাফিলতির জেরে মৃত্যুর ধারা (৩০৪এ) মতো লঘু ধারায় চার্জ গঠনের আবেদন জানালেও আদালত তাদের সঙ্গে সহমত হলো না।

অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে কমপক্ষে ১০ বছরের হাজতবাস করতে হবে বিক্রম চট্টোপাধ্যায়কে।

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

Print Friendly, PDF & Email