Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

এফ.এ. ইসলামিক মিশনের ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) মাহফিলে বক্তারা


ইসলামের নামে জঙ্গী তৎপরতা বন্ধ করতে হবে

এফ.এ ইসলামিক মিশনের উদ্যোগে পবিত্র জশনে ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) উপলক্ষে ওরছে কুল মাহফিল প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ জয়নুল আবেদীনের সভাপতিত্বে ২৫ মার্চ বৃহস্পতিবার বাদে ফজর হতে ফটিকছড়ি নানুপুর এফ.এ ইসলামিয়া সুন্নিয়া দাখিল মাদ্রাসা ময়দানে অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন আন্জুমানে রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহসিন। প্রধান বক্তা ছিলেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত বাংলাদেশের সম্মানিত চেয়ারম্যান আল্লামা কাজী মুহাম্মদ মুঈন উদ্দিন আশরাফী। বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান, গবেষক আল্লামা এম.এ মান্নান, শায়খুল হাদিস আল্লামা হাফেজ সোলেমান আনছারী, প্রধান ফকিহ আল্লামা মুফতি কাজী মুহাম্মদ আব্দুল ওয়াজেদ, খতিব আল্লামা ক্বারী সৈয়দ আবু তালেব মুহাম্মদ আলাউদ্দিন, উপাধ্যক্ষ আল্লামা ড. মুহাম্মদ লেয়াকত আলী। পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাষ্টার মুহাম্মদ আবুল হোসাইনের সঞ্চালনায় এতে আরো উপস্থিত ছিলেন অধ্যক্ষ আল্লামা ইব্রাহিম কাসেম আলকাদেরী, উপাধ্যক্ষ আল্লামা তৈয়্যব খান আলকাদেরী, অধ্যক্ষ আল্লামা আবুল কালাম রেজভী, উপাধ্যক্ষ আল্লামা আব্দুস শুক্কুর আনসারী, উপাধ্যক্ষ আল্লামা জসিম উদ্দিন আলকাদেরী, আল্লামা তৈয়্যবুল আলম আলকাদেরী, আল্লামা মুহাম্মদ হামেদ রেজা নঈমী, মাওলানা সরওয়ার আলম আলকাদেরী, মাওলানা জসিম উদ্দিন আবেদী, মাওলানা নঈমুল হক নঈমী, আলহাজ্ব মাওলানা করিম উদ্দিন নূরী, মাওলানা আ.ন.ম তৈয়্যব আলী, মাওলানা কামরুল হুদা, হাফেজ মাওলানা দিদারুল আলম, মাওলানা মুহাম্মদ সালাউদ্দিন, মাওলানা ফজলুল বারী, মাওলানা ইসমাইল হোসাইন প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহসিন বলেন, ইসলামের নামে জঙ্গী তৎপরতা বন্ধ করতে হবে অন্যতায় দেশ ও জাতি মহা বিপদের সম্মূখিন হবে। ইসলাম শান্তির ধর্ম। সাম্য, মৈত্রী ও ভালোবাসার মাধ্যমে রাসুল করিম (দ.) ইসলামের সুমহান বাণী পৌঁছে দিয়েছিলেন। যার কারণে আজকে পৃথিবীর দেশে দেশে ইসলাম তথা মহানবী (দ.) কে নিয়ে গবেষণা চলছে। বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারী হতে বাঁচতে হলে ইসলামের সঠিক আদর্শ ও নবী করিম (দ.) এর সুন্নতের উপর কঠোর আমলের কোন বিকল্প নেই। তারই ধারাবাহিকতায় আউলিয়া কেরামের দেখানো পথে মতে নিজের জীবন পরিচালিত করলেই শান্তির সমাজ বিনির্মিত হবে। এক্ষেত্রে দ্বীনি শিক্ষার প্রসারে সমন্বীত উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। দিনব্যাপী কর্মসূচীর মধ্যে খতমে কোরআন, খতমে গাউসিয়া শরীফ, খতমে খাজেগান, খতমে মজমুয়ায়ে সালাওয়াতে রাসুল (দ.) ও খতমে সহীহ বোখারী শরীফ এবং আখেরি মুনাজাত ও তাবারুক বিতরণের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

Print Friendly, PDF & Email